spot_img

সর্বোচ্চ কঠোর লকডাউন নিয়ে যা জানালেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

অবশ্যই পরুন

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ঈদের পর ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত ১৪ দিনের জন্য কঠোর লকডাউন শুরু হবে। শিথিল অবস্থার মেয়াদ পিছিয়ে ২৭ জুলাই থেকে আবার শাটডাউন দেয়ার যে গুঞ্জন ছড়িয়েছে তার কোনো ভিত্তি নেই বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন ।

তিনি বলেন, আগামী ২৩ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে সর্বোচ্চ কঠোর লকডাউন। যা চলবে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত।

বুধবার (২১ জুলাই) রাতে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এসব কথা বলেন।

যারা দেশে গেছেন ঈদে তাদের ঢাকায় না আসার আহ্বান জানিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিধিনিষেধ শিথিলের মেয়াদ আর বাড়ছে না। ২৩ জুলাই কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়ে চলবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত। এই ১৪ দিন যদি আমরা বিধিনিষেধ মেনে চলি, তাহলে সংক্রমণের চেইনটা ভাঙতে পারবো।

সর্বোচ্চ কঠোর লকডাউন শুরু হলে  যারা বাড়ি গিয়ে ঈদ আনন্দ উদযাপন করছেন তাদের কর্মস্থল বা নির্ধারিত গন্তব্যে ফিরে আসতে হবে শুক্রবার ভোর ৬টার মধ্যে।

কারণ  শাটডাউন শুরু হওয়া মাত্রই বন্ধ হবে সব সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস। বন্ধ থাকবে অভ্যন্তরীণ বিমানসহ সড়ক, রেল ও নৌপথে সকল গণপরিবহন ও সব ধরনের যন্ত্রচালিত যানবাহন।

কোনো অবস্থাতেই খোলা যাবে না শপিং মল, মার্কেটসহ সব দোকানপাট। বন্ধ থাকবে পর্যটনকেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদনকেন্দ্রের মতো সব ধরনের জনসমাগম কেন্দ্র।

ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনা, চিকিৎসাসেবা, মৃতদেহ দাফন বা সৎকারের মতো অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনোভাবে কেউই বাড়ির বাইরে আসতে পারবে না।

নির্দেশ অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানিয়ে দিয়েছে সরকার। এজন্য মাঠে থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বসানো হবে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

টহল নিশ্চিত করে শাটডাউনে বাস্তবায়নে ‘আর্মি ইন এইড টু সিভিল পাওয়ার’-এর আওতায় মাঠে নামানো হবে সেনাবাহিনীকে। এ ছাড়া, মাঠে থাকবে বিজিবি, কোস্টগার্ড, র‌্যাব ও আনসার।

সর্বশেষ সংবাদ

ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফর দেড় বছর পিছিয়ে গেল

তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলতে আগামী সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে আসার কথা ছিল ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের। কিন্তু হঠাৎ-ই সিরিজটি স্থগিতের...

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ