spot_img

এবার ভোক্তা পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

অবশ্যই পরুন

এবার ভোক্তা পর্যায়ে বিদ্যুতের দামবৃদ্ধির জন্য আবেদন করেছে বিতরণ কোম্পানিগুলো। আবেদনে বিদ্যুতের দাম গড়ে প্রায় ২০ শতাংশ বাড়াতে চায় বিতরণ সংস্থা।

গত বুধবার (২৩ নভেম্বর) ভোক্তা পর্যায়েও দাম বাড়াতে বিইআরসির কাছে আবেদন করেছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। বিদ্যুৎ উৎপাদনের পাশাপাশি বিতরণ কোম্পানিও পিডিবি। তাদের আবেদনের পর বৃহস্পতিবার আরও দুটি কোম্পানি দাম বাড়ানোর আবেদন করেছে। এছাড়া আগামী সপ্তাহে বাকি তিনটি কোম্পানি আবেদন করতে পারে। আবেদনে বিদ্যুতের দাম গড়ে প্রায় ২০ শতাংশ বাড়াতে চায় বিতরণ কোম্পানিগুলো।

বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানির দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা জানান, ভোক্তা পর্যায়ে গড়ে ১৯ দশমিক ৪৪ শতাংশ দাম বাড়ানোর আবেদন করেছে পিডিবি। আর নির্দিষ্ট কোনো পরিমাণ উল্লেখ না করেই বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে দাম বাড়ানোর আবেদন করেছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি) এবং ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো)।

আর দেশের সবচেয়ে বড় বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি), দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানি ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো) এবং উত্তরাঞ্চলের শহর এলাকার বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি (নেসকো) আগামী সপ্তাহে দাম বাড়ানোর আবেদন জমা দিতে পারে।

এ বিষয়ে বিইআরসির চেয়ারম্যান আবদুল জলিল জানান, ভোক্তা পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়াতে কমিশনের কাছে তিনটি আবেদন জমা হয়েছে। সব বিতরণ কোম্পানির আবেদন জমা হলে তা যাচাই-বাছাই করে আইন ও বিধি অনুসারে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত ২১ নভেম্বর পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ১৯ দশমিক ৯২ শতাংশ বৃদ্ধি করে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। সেদিন বিইআরসি জানিয়েছিল, এখনই খুচরা পর্যায়ে বিদ্যুতের দামে কোনো প্রভাব পড়বে না।

এর আগে সবশেষ গত জুন মাসে গ্যাসের দাম এবং গত আগস্টে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হয়।

সর্বশেষ সংবাদ

মির্জা ফখরুল হীন রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে নির্লজ্জ মিথ্যাচার করেছেন: ওবায়দুল কাদের

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর হীন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের লক্ষ্যে নির্লজ্জ মিথ্যাচার করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ...

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ