spot_img

এক বছরের শিশুদের কী খাওয়াবেন, কী খাওয়াবেন না?

অবশ্যই পরুন

সন্তান জন্মের পর থেকে তাদের খাওয়া-দাওয়ার বিষয়ে সতর্ক থাকেন অভিভাবকরা। সন্তানের শারীরিক ও মানসিক বিকাশের জন্য কোন বয়স থেকে, কখন কোন খাবার দেওয়া উচিত, সে বিষয় প্রত্যেক মা-বাবাই সজাগ দৃষ্টি রাখেন। কিন্তু ৬ মাস থেকে ১ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুকে কী খাওয়াবেন, তা নিয়ে অনেক মা-বাবাই চিন্তিত থাকেন। তাই বাচ্চাদের সুস্বাস্থ্যের জন্য একটি ভালো খাদ্যতালিকার প্রয়োজন।

৬ মাস থেকে ১ বছর বয়স পর্যন্ত বাচ্চাদের কী খাওয়াবেন?

এই বয়সের বাচ্চাদের প্রথমে একটি ফল ও একটি সবজি দেওয়া শুরু করতে পারেন। সকালের খাবারে শিশুকে একটি আপেল খাওয়াতে পারেন। মধ্যাহ্নভোজে কোনও একটি সবজির ভর্তা বানিয়ে ঘি বা মাখনে সামান্য ভেজে তাদের খাওয়ান। রাতের খাবারে খিচুড়ি খাওয়াতে পারেন। আলু, লাল আলু, গাজর, লাউ, বীটের মতো সবজি বাচ্চাদের খাদ্য তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করতে পারেন। এই বয়সে দিনে দুবার ভারী কিছু খাওয়ান, একবার হাল্কা কিছু খেতে দিন। তাদের খেলাধুলো করতে দিন। এর ফলে হজম ভালো হবে এবং তাদের শারীরিক বিকাশও সম্ভব হবে।

ক্রমশ বাড়ান খাবারের পরিমাণ

আপনার সন্তানের শরীর যখন একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ খাবার হজম করতে অভ্যস্ত হয়ে পড়বে, তখন ধীর গতিতে তার খাবারের পরিমাণ বাড়িয়ে দিন। এ সময় তাদের খাদ্য তালিকায় একটির পরিবর্তে ৫টি ফল ও সবজি অন্তর্ভূক্ত করতে পারেন। এতে তিনটি ভারী ও দুটি হাল্কা খাবার দিন। সকালে বাচ্চাদের ওটস খাওয়ান। তার পর কোনও একটি সবজি চটকে খাওয়ান। এ ছাড়াও দিনের কোনও সময় খিদে পেলে ফল বা ফলের রস দিতে পারেন। রাতে মায়ের দুধ বা সেরেলেক্স দিতে পারেন। বাচ্চাদের একটি নির্দিষ্ট সময় খেতে দিন। এর ফলে তারা সঠিক সময় নিজের খাবার হজম করতে পারবে। কখনো জোর করে খাবার খাওয়াবেন না।

৬ মাস থেকে ১ বছরের বাচ্চাকে কী মাছ-মাংস খাওয়ানো যায়?

বিশেষজ্ঞদের মতে, ৬ মাস থেকে ১ বছরের বাচ্চাদের কোনও আমিষ খাবার খাওয়াতে নেই। তবে ৯ মাস বয়সের বাচ্চাদের ডিম দিতে পারেন। ১ বছর পর চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী বাচ্চাদের খাদ্য তালিকায় মাছ-মাংস অন্তর্ভূক্ত করবেন। মাছ-মাংসের মতো ভারী খাবার বাচ্চারা সহজে হজম করতে পারবে না, তাই একটু দেরিতে এ ধরনের খাবার দেওয়া শুরু করা উচিত।

১ বছর পর্যন্ত বাচ্চাদের কী কী খাওয়াবেন না

> ৬ মাস থেকে ১ বছরের বাচ্চাদের ডালের পানি দেওয়া উচিত নয়।

> এছাড়াও সুপ দেবেন না। কারণ এর ফলে তাদের খাবারে ক্যালোরির পরিমাণ কমে যাবে।

> ১ বছর পর্যন্ত কোনও ড্রাই ফ্রুট দেবেন না বাচ্চাদের। ১ বছর পর ড্রাই ফ্রুট বেটে, দুধে মিশিয়ে দিন। বাচ্চারা সহজে এটি হজম করতে পারবে।

> এ সময় গরুর দুধ পান করাবেন না

উল্লেখ্য, বাচ্চাদের ২ বছর বয়স পর্যন্ত অবশ্যই মায়ের দুধ পান করাবেন। এটিই শিশুদের সর্বোৎকৃষ্ট আহার।

সূত্র: এই সময়

সর্বশেষ সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সূচি (১৭ জানুয়ারি ২০২২)

আজ সোমবার, ১৭ জানুয়ারি ২০২২ ইংরেজি, ০৩ মাঘ ১৪২৮ বাংলা, ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি। ঢাকা ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকার নামাজের সময়সূচি- জোহর...

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ