spot_img

সমাজ ও রাষ্ট্রের জন্য ডিজিটাল অপরাধ একটি বড় চ্যালেঞ্জ: মোস্তাফা জব্বার

অবশ্যই পরুন

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার ডিজিটালাইজেশনের প্রেক্ষাপটে ডিজিটাল অপরাধ সম্পর্কিত বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের অধিকতরও দক্ষতা-অর্জনের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন।

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল অপরাধ ব্যক্তি ও পরিবার এবং সমাজ ও রাষ্ট্রের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ডিজিটাল প্রযুক্তি বিষয়ক মানসম্মত শিক্ষা গ্রহণ এবং এ ব্যাপারে ব্যাপক সচেতনতা গড়ে তোলা অপরিহার্য। এ ক্ষেত্রে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে সম্পৃক্ত করার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনীগুলোকেও ডিজিটাল অপরাধ বিষয়ে অধিকতর দক্ষতা প্রদানের লক্ষ্যে ব্যবস্থা নেয়া দরকার।’

মোস্তাফা জব্বার বুধবার রাতে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরী কমিশন (বিটিআরসি) এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ‘নিরাপদ ইন্টারনেট’ শীর্ষক ভার্চ্যূয়াল সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদারের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. আফজাল হোসেন, বিটিআরসি’র মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসিম, টেলিযোগাযোগ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মহসিনুল আলম, টেলিটক’র ব্যাবস্থাপনা পরিচালক সাহাব উদ্দিন, দ্য এডিটরস গিল্ড বাংলাদেশের সভাপতি মোজাম্মেল বাবু, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি সাইদ মুনির, আইএসপিএবি’র সভাপতি এমএ হাকিমসহ বাংলা লিংক, রবি ও ফাইভার এট হোম’র প্রতিনিধিরা বক্তৃতা করেন।

এই অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন বিসিএস’র মহাসচিব মনিরুল ইসলাম। ‘আমরা আমাদের নিজেদের প্রযুক্তি ব্যবহার করবো এটা ঠিক, তবে সেটা রাতারাতি সম্ভব নয়’ এ কথা উল্লেখ করে মাস্তাফা জব্বার বলেন, ফেসবুক ও ইউটিউবসহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম তাদের দেশের কম্যুনিটি স্ট্যান্ডার্ড রক্ষা করে চলে।

তিনি বলেন,‘আমাদের জীবন ধারার সাথে তাদের জীবন ধারার মিল নেই। তবে আমাদের সন্তানরা অনেক দক্ষ। তারা ইচ্ছা করলে প্রযুক্তির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সক্ষম। আর এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আমাদের প্রযুক্তি খাত সংশ্লিষ্ট সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে। আমরা সচেতনতার জন্য কাজ করবো, প্রযুক্তির জন্য কাজ করবো।’

মন্ত্রী বলেন, এমএফএস বা ব্যাংকিং খাতে নতুন নতুন যেসব অপরাধের সূচনা হয়েছে। রাষ্ট্রের জন্যও তা চ্যালেঞ্জ। টেলিকমখাত সংশ্লিষ্টরাসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ডিজিটাল প্রতারণাসহ সাইবার অপরাধ অসাধারণ দক্ষতার সাথে মোকাবেলা করছে।

এ অনুষ্ঠানে বক্তারা নিরাপদ ইন্টারনেট নিশ্চিত করতে করণীয় বিষয়ে বিস্তারিত মতামত ব্যক্ত করেন। এ ক্ষেত্রে তারা সম্মিলিত উদ্যোগ গ্রহণের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন।

সর্বশেষ সংবাদ

কাটা ফল টাটকা রাখবেন যেভাবে

ফল স্বাস্থ্যের জন্য ভাল, এ কথা নতুন নয়। নিজের ডায়েট ও শিশুর টিফিনে ফল দেওয়ার প্রবণতা অনেকেরই রয়েছে। শিশুরা...

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ