লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবিতে ৪৩ অভিবাসীর মৃত্যু

অবশ্যই পড়ুন

আর্জেন্টিনায় ইসলামের আলো ছড়াচ্ছে কিং ফাহাদ কালচারাল সেন্টার

আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েনস আইরেসে অবস্থিত বাদশাহ ফাহাদ ইসলামিক কালচারাল সেন্টার। ল্যাতিন আমেরিকার সবচেয়ে বড় মসজিদও এটি। পাশাপাশি ইসলামি শিক্ষা...

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন

সারাবিশ্বের সাথে মিল রেখে উখিয়ার বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন করা হয়েছে। দিবসটিতে...

কোলের শিশুকে কুপিয়ে হত্যা, মা‌য়ের যাবজ্জীবন

কি‌শোরগ‌ঞ্জে  কান্না করার অপরা‌ধে ১৫ মা‌সের কো‌লের শিশুপুত্র‌কে কু‌পি‌য়ে হত্যার দা‌য়ে মা ছালমা বেগম‌কে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দি‌য়ে‌ছেন আদালত। এছাড়াও...

পরমাণু সমঝোতা পুনর্বহালে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনায় প্রস্তুত রাশিয়া

আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা বা আইএইএ-তে নিযুক্ত রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি মিখাইল উলিয়ানভ বলেছেন, ইরান এবং ছয় জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে সই...

নারী দিবসে কোয়েলের বার্তা

আন্তর্জাতিকভাবে ৮ মার্চ পালিত হচ্ছে নারী দিবস। এদিনটাকে স্মরণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কোয়েল মল্লিক একটি পোস্ট দিয়েছেন। তবে...

উত্তর আফ্রিকার দেশ লিবিয়ার উপকূলে নৌকাডুবে অত্যন্ত ৪৩ জন অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২০ জানুয়ারি) জাতিসংঘের অভিবাসন বিষয়ক সংস্থা বিবৃতির মাধ্যমে তথ্যটি নিশ্চিত করে।

সংস্থাটির মতে, মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) ইউরোপ অভিমুখী অভিবাসন প্রত্যাশীদের নৌকাটি ভূমধ্যসাগরে ডুবে যায়। এরপর লিবিয়ার পশ্চিমাঞ্চলীয় জুওয়ার শহরের উপকূল রক্ষীরা ১০ জনকে জীবিত উদ্ধার করতে সমর্থ হয়।

জানা যায়, মারা যাওয়া সবাই পুরুষ এবং তারা পশ্চিম আফ্রিকার দেশগুলো থেকে এসেছিল। মঙ্গলবার ভোরে জুওয়াইয়া শহর থেকে নৌকাটি রওনা দেয়। প্রায় চার ঘণ্টা পর উত্তাল সাগরে এর ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায় এবং এটি ডুবে যায়।

উল্লেখ্য, অবৈধভাবে ইউরোপ অভিমুখী আফ্রিকার দেশগুলোর বাসিন্দাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ট্রানজিট পয়েন্ট হয়ে দাঁড়িয়েছে লিবিয়া। প্রায়ই ভূমধ্যসাগরে নৌকা ডুবে অভিবাসন প্রত্যাশীদের মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। চলতি বছর নৌকা ডুবে অভিবাসী মৃত্যুর এটাই প্রথম ঘটনা।

২০১১ সালে অভ্যুত্থানের পরে স্বৈরশাসক গাদ্দাফির পতন ও তাকে হত্যা করার পর পালিয়ে ইউরোপ যাওয়ার জন্য আফ্রিকা ও আরব অভিবাসীদের প্রধান ট্রানজিট পয়েন্ট হয়ে ওঠে লিবিয়া। বেশিরভাগ অভিবাসীই অনিরাপদ এবং ছোট রাবারের নৌকায় চড়ে বিপদসংকুল ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেয়ার চেষ্টা করে।

আইওএম জানায়, ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে ২০১৪ সাল থেকে এ পর্যন্ত ২০ হাজারেরও বেশি শরণার্থীর মৃত্যু হয়েছে। তবে অভিবাসী ঠেকাতে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে লিবিয়ার উপকূলরক্ষী এবং অন্যান্য বাহিনীর সঙ্গে একজোট হয়ে কাজ করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

সূত্র : রয়টার্স, এএফপি

- Advertisement -
- Advertisement -

সর্বশেষ সংবাদ

আর্জেন্টিনায় ইসলামের আলো ছড়াচ্ছে কিং ফাহাদ কালচারাল সেন্টার

আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েনস আইরেসে অবস্থিত বাদশাহ ফাহাদ ইসলামিক কালচারাল সেন্টার। ল্যাতিন আমেরিকার সবচেয়ে বড় মসজিদও এটি। পাশাপাশি ইসলামি শিক্ষা...
- Advertisement -

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

- Advertisement -