36 C
Dhaka
সোমবার, নভেম্বর ২৩, ২০২০

দোকানের সেলসম্যান থেকে যেভাবে ‘গোল্ডেন মনির’

অবশ্যই পরুন

করোনায় মা’রা যাওয়া দুদক পরিচালকের স্বজন বলে দিলেন করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার টোটকা

করোনা ভাইরাস বাংলাদেশে হানা দিয়েছে প্রায় ১ মাসের বেশি হয়ে গেল। আর এই এক মাসের মধ্যে করোনা বেশ ছড়িয়েছে...

রাশিয়ায় বাড়ছে করোনা, সামরিক বাজেট ব্যবহারের নির্দেশ পুতিনের

বিশ্বে করনোভাইরাসের মারাত্মক হানার মধ্যেও রাশিয়ায় শুরুতে খুব বেশি প্রভাব দেখা দেয়নি। তবে সম্প্রতি দেশটিতে ভয়ংকর আকার নিতে শুরু...

সিঙ্গাপুরে একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড

বুধবার একদিনে সিঙ্গাপুরে ৪৪৭ জনের দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়েছে। যা দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দ্বীপরাষ্ট্রে একদিনে সর্বোচ্চসংখ্যক করোনা...

ফ্যামিলি বাইকার হয়ে উঠার পিছনের গল্প

আজকে আমি পরিচয় করিয়ে দিবো আমার ফ্যামিলি বাইকার হয়ে উঠার পিছনে অন্যতম সাহায্যকারী আমার বৌ Sharmin Upoma কে। সে শুধু...

অবৈধ অস্ত্র, মাদক ও বিদেশি মুদ্রা রাখার অভিযোগে র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার মনির হোসেন নব্বইয়ের দশকে গাউছিয়া মার্কেটের একটি কাপড়ের দোকানের সেলসম্যান হিসেবে কাজ করতেন। সময়ের ব্যবধানে তিনি স্বর্ণ চোরাচালানকারী হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। তার নাম হয়ে যায় গোল্ডেন মনির।

রাজধানীর মেরুল বাড্ডার বাসা থেকে মনিরকে গ্রেপ্তারের পর শনিবার এক ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানিয়েছে র‌্যাব।

মেরুল বাড্ডার ডিআইটি প্রজেক্টে মনিরের বাসায় শুক্রবার রাতে অভিযানে যায় র‌্যাব। ছয়তলা বাড়িতে র‌্যাব-৩ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসুর নেতৃত্বে শুক্রবার মধ্যরাতে শুরু হয়ে শনিবার সকাল পর্যন্ত অভিযান চলে।

অভিযানে মনিরের বাড়ি থেকে নগদ ১ কোটি ৯ লাখ টাকা, ৪ লিটার মদ, ৮ কেজি স্বর্ণ, একটি বিদেশি পিস্তল, কয়েক রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। অস্ত্র ও মদের পাশাপাশি ৯ লাখ টাকা মূল্যের ১০টি দেশের বৈদেশিক মুদ্রা জব্দ করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মনিরের বাড়িতে পাঁচটি গাড়ি পাওয়া গেছে, যার মধ্যে তিনটি গাড়ির বৈধ কাগজপত্র নেই বলে সেগুলো জব্দ করা হয়েছে।

মনিরের ১ হাজার ৫০ কোটি টাকার উপর সম্পদের তথ্য পাওয়ার কথা জানিয়েছে র‌্যাব। বাড্ডা, নিকেতন, কেরানীগঞ্জ, উত্তরা, নিকুঞ্জে দুইশর বেশি প্লট রয়েছে তার।

একটি গোয়েন্দা সংস্থার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে এ অভিযান চালানো হয় বলে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, নব্বইয়ের দশকে গাউছিয়া মার্কেটের একটি কাপড়ের দোকানের সেলসম্যান হিসেবে কাজ করতেন মনির। এরপর রাজধানীর মৌচাকের একটি ক্রোকারিজ দোকানে তিনি কাজ নেন। সে সময় এক লাগেজ ব্যবসায়ীর সঙ্গে পরিচয় হলে মনির লাগেজ ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত হন।

আশিক বিল্লাহ  বলেন, ঢাকা-সিঙ্গাপুর–ভারত, এই রুটে তিনি প্রথমে লাগেজে করে কাপড়, কসমেটিক, ইলেকট্রনিকস, কম্পিউটারসামগ্রী, মোবাইল, ঘড়িসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র ট্যাক্স ফাঁকি দিয়ে আনা-নেয়া করতেন। এই কাজগুলো করতে করতে তিনি লাগেজ স্বর্ণ চোরাচালানে জড়িয়ে পড়েন।

‘পরে বায়তুল মোকাররমে একটি জুয়েলারি দোকান দেন মনির। সময়ের ব্যবধানে মনির বড় ধরনের স্বর্ণ চোরাচালানকারী হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। তার নাম হয়ে যায় গোল্ডেন মনির।’

চোরাচালানের দায়ে ২০০৭ সাল বিশেষ ক্ষমতা আইনে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হয় বলে জানান র‌্যাবের এই মুখপাত্র।

আশিক বিল্লাহ আরো বলেন, ভূমিদস্যুতার মাধ্যমে মনির অসংখ্য প্লটের মালিক হয়েছেন। রাজউক থেকে প্লটসংক্রান্ত সরকারি নথিপত্র চুরি করে এবং অবৈধভাবে রাজউকের বিভিন্ন কর্মকর্তাকে দাপ্তরিক কাজে ব্যবহার করে রাজউক, পূর্বাচল, বাড্ডা, নিকুঞ্জ, উত্তরা এবং কেরানীগঞ্জে নামে-বেনামে অন্তত দুই শতাধিক প্লট নিজের করে নেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মনির ৩০টির বেশি প্লটের কথা স্বীকার করেছেন।

এদিকে র‌্যাবের অভিযানে গ্রেপ্তার হওয়া মনির হোসেন ওরফে গোল্ডেন মনিরের বিরুদ্ধে উঠা সব অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে তার ছেলে মো. রাফি হোসেন। রাফি হোসেন নিউজজিকে বলেন, ‘আমার বাবা একজন স্বনামধন্য ব্যবসায়ী। চিকিৎসার জন্য আগামীকাল রোববার বাবার দুবাই যাবার কথা ছিল। বাবার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ দেয়া হচ্ছে, সব মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।’

তিনি আরো বলেন, ‘চিকিৎসার জন্য বাবা প্রায় দুবাই যান। আগামীকাল তার ফ্লাইট ছিল। এর আগেই র‌্যাব তাকে গ্রেপ্তার করে। তবে মনিরের শারীরিক কোনো সমস্যা সম্পর্কে কিছু জানাতে পারেননি তার ছেলে রাফি।

মনির নির্দোষ দাবি করে তার ছেলে রাফি বলেন, ‘আমার বাবা নির্দোষ। তিনি কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। আমরা আইনগতভাবে সব মোকাবেলা করব। বাবার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ দেয়া হচ্ছে সব ভিত্তিহীন। তিনি একজন স্বনামধন্য ব্যবসায়ী। আমরা কোর্টে যাবো। সেখানেই প্রমাণ হবে, বাবা দোষী কি-না। সম্পূর্ণ ভুল বোঝাবুঝির মাধ্যমেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

সর্বশেষ সংবাদ

ডিসেম্বরে করোনার টিকা দেওয়া শুরু করবে যুক্তরাষ্ট্র

ডিসেম্বরের শুরুর দিকে করোনার টিকাদান প্রকল্প শুরুর আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা। রোববার সরকারের করোনা টিকা প্রকল্পের...

করোনার তৃতীয় ঢেউ আসতে পারে, ডব্লিউিএইচও’র সতর্কতা

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে ব্যর্থ হলে ২০২১ সালের শুরুর দিকে ইউরোপজুড়ে সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ শুরু হতে পারে বলে আশঙ্কা...

চোখ বন্ধ করে পুরো ঘটনার চতুর্দিক দেখতে পাই আমি

আমার কাজ ছিল ‘জনগণের জন্য’। এবং এখানে আমাকে যে ক্ষমতা দেয়া হয়েছে তার চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখেছি। ব্যক্তিগতভাবে বিচারক হিসেবে...

ট্রাম্প স্বীকৃতি না দেয়ায় বাইডেনকে স্বীকৃতি দিইনি: পুতিন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনকে এখনও অভিনন্দন জানাননি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। বাইডেন বিজয়ী হওয়ার পর দুই সপ্তাহ পেরিয়ে...

ট্রাম্পের কোভিড চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওষুধ অনুমোদন পেল

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) পরীক্ষামূলক একটি অ্যান্টিবডি ভিত্তিক ওষুধের জরুরি প্রয়োগ অনুমোদন দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট মার্কিন কর্মকর্তাদের এক ঘোষণায় আজ রোববার...

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ