36 C
Dhaka
শুক্রবার, জুন ৫, ২০২০

আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল চীনের ভ্যাকসিন

অবশ্যই পরুন

করোনায় মা’রা যাওয়া দুদক পরিচালকের স্বজন বলে দিলেন করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার টোটকা

করোনা ভাইরাস বাংলাদেশে হানা দিয়েছে প্রায় ১ মাসের বেশি হয়ে গেল। আর এই এক মাসের মধ্যে করোনা বেশ ছড়িয়েছে...

রাশিয়ায় বাড়ছে করোনা, সামরিক বাজেট ব্যবহারের নির্দেশ পুতিনের

বিশ্বে করনোভাইরাসের মারাত্মক হানার মধ্যেও রাশিয়ায় শুরুতে খুব বেশি প্রভাব দেখা দেয়নি। তবে সম্প্রতি দেশটিতে ভয়ংকর আকার নিতে শুরু...

সিঙ্গাপুরে একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড

বুধবার একদিনে সিঙ্গাপুরে ৪৪৭ জনের দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়েছে। যা দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দ্বীপরাষ্ট্রে একদিনে সর্বোচ্চসংখ্যক করোনা...

ফ্যামিলি বাইকার হয়ে উঠার পিছনের গল্প

আজকে আমি পরিচয় করিয়ে দিবো আমার ফ্যামিলি বাইকার হয়ে উঠার পিছনে অন্যতম সাহায্যকারী আমার বৌ Sharmin Upoma কে। সে শুধু...

আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল চীনের ভ্যাকসিন। সম্প্রতি নতুন এক গবেষণায় বলা হয়েছে যে, করোনাভাইরাসের জন্য তৈরি চীনের একটি ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগের কাজ আরও এগিয়ে গেছে। খবর ডেইলি মেইলের।

১০৮ জন সুস্থ স্বেচ্ছাসেবীর দেহে ওই ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগে ভালো ফল দেখতে পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। ওই স্বেচ্ছাসেবীদের দেহে এই ভ্যাকসিন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে।

করোনা রোগীদের দেহে এন্টিবডি উৎপাদন হওয়াটা একটি ভালো লক্ষণ যা তাদেরকে সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে পারে। তবে এখনই এ নিয়ে একেবারে নিশ্চয়তা দিতে রাজি নন বিজ্ঞানীরা। তারা এ বিষয়টি নিয়ে আরও গবেষণা করতে চান।

ভ্যাকসিন তৈরি কাজ এগিয়ে নিতে এসব বিষয় খুবই গুরুত্বপূর্ণ। চীনা প্রতিষ্ঠান ক্যানসিনো এই ভ্যাকসিনটি তৈরি করেছে। চলতি বছরের শুরুর দিকে এর ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হয়।

যেসব স্বেচ্ছাসেবীর দেহে এই ভ্যাকসিন পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হয়েছে তাদের মধ্যে বেশিরভাগের দেহেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়েছে। যদিও তাদের শরীরে তৈরি হওয়া অ্যান্ডিবডির মাত্রা ছিল কিছুটা কম।

মেডিক্যাল জার্নাল ল্যানচেটে ওই গবেষণা প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, স্বেচ্ছাসেবীদের দেহে তাদের ভ্যাকসিন সহনীয় হয়ে উঠেছে এবং নভেল করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে।

চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী ১০৮ জনের ওপর পরীক্ষামূলকভাবে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়। গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহানেই প্রথম করোনার উপস্থিতি ধরা পড়ে। এরপরেই তা গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। সারাবিশ্বেই এক ভয়াবহ বিপর্যয় ডেকে এনেছে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস।

অংশগ্রহণকারীদের দেহে নিম্ন, মধ্যম ও উচ্চ মাত্রায় ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কারো দেহেই এই ভ্যাকসিন প্রয়োগের পর গুরুতর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি।

করোনার প্রাদুর্ভাব শুরু পর থেকেই এর ভ্যাকসিন তৈরীতে উঠে পড়ে লেগেছেন বিজ্ঞানীরা। এর মধ্যেই বেশ কিছু দেশে ভ্যাকসিনের কাজ অনেকটাই এগিয়ে গেছে।

সর্বশেষ সংবাদ

বাজেট অধিবেশনে সর্বোচ্চ ১০০ জন থাকতে পারবেন

আগামী ১০ জুন শুরু হবে একাদশ সংসদের অষ্টম (বাজেট) অধিবেশন। ১১ জুন বিকেল ৩টায় অর্থমন্ত্রী আ হ...

যুগ্ম-সচিব পদে পদোন্নতি পেলেন ১২৩ কর্মকর্তা

উপসচিব থেকে যুগ্ম সচিব পদে পদোন্নতি পেয়েছেন সরকারের ১২৩ কর্মকর্তা। বিসিএস ১৮তম ব্যাচের এই কর্মকর্তাদের পদোন্নতি দিয়ে শুক্রবার প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন...

জরিমানা জেলের ঘানি টানা থেকে বাঁচলেন কস্তা

করোনার মধ্যেই কর ফাঁকির মামলার শুনানির জন্য মাদ্রিদের একটি আদালতে যেতে হয়েছে দিয়েগো কস্তাকে। তবে আদালত থেকে হাসিমুখেই ফিরেছেন অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের এ...

আমাদের অবশ্যই প্রকৃতির যত্ন নিতে হবে: জাতিসংঘ প্রধান

প্রকৃতি সবার কাছে একটি পরিষ্কার বার্তা পাঠিয়েছে উল্লেখ করে সবাইকে প্রকৃতির যত্ন নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। শুক্রবার বিশ্ব পরিবেশ দিবস...

পাবনায় স্বামী-স্ত্রী ও মেয়ের লাশ উদ্ধার

পাবনার দিলালপুরের এক বাড়ি থেকে শুক্রবার স্বামী-স্ত্রী ও মেয়ের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- রাকাবের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল জব্বার (৬০), তার স্ত্রী...

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ