ফ্যামিলি বাইকার হয়ে উঠার পিছনের গল্প

480
আজকে আমি পরিচয় করিয়ে দিবো আমার ফ্যামিলি বাইকার হয়ে উঠার পিছনে অন্যতম সাহায্যকারী আমার বৌ Sharmin Upoma কে।
সে শুধু আমার বৌ না সে আমার একজন অন্যতম সেরা পিলিয়ন। যার প্রতিটি স্পর্শ আমি বুঝতে পারি।
প্রথমে একা বাইক রাইড এর কথা বলিঃ-
আমি যখন একা পরিবার নিয়ে ট্যুর করি তখন ও আমার পিছনে বসে পুরো হেলপার এর মতো আমাকে সাহায্য করে। যেমন যখন আমার বাইক স্লো করতে হবে তখন সে আমার শরীরে স্পর্শ করে তার স্পর্শ গুলো আমার মুখস্ত, সে আমার শরীরে হাত দেওয়ার সাথে সাথেই আমি বুঝতে পারি আমার কি করতে হবে। আবার অন্য হাত দিয়ে পিছনের এবং পাশের যানবাহন কে সিগনাল দেয়।
সব থেকে বড়ো যে বিষয় টা সেটা হলো কথনও কোন কারনে হার্ড ব্রেক করতে হলে বা বিপদের আশঙ্কা থাকলে বাইক থামার আগেই ওর মুখ থেকে “লা ইলাহা ইল্লা অান্তা সুবহানাকা ইন্নী কুনতু মিনায যোয়ালেমিন” এই দোঅা টা বেরিয়ে আসে। যার কারনে অাল্লাহর রহমতে অনেক বিপদ থেকে বেঁচে যাই আমরা।
এইবার বলবো গ্রুপ ট্যুর এর কথাঃ-
আমাদের একটা গ্রুপ আছে Tour 365 BD এই গ্রুপ এর মাধ্যমে যখন বেশ কিছু বাইক নিয়ে আমরা ট্যুরে যাই তখন তার অবদান অকল্পনীয়, আমি সবসময় গ্রুপ ট্যুরে লিড দিয়ে থাকি। সে আমার পিছনে থেকে সবসময় পিছনের বাইক গুলোকে যে ভাবে সিগনাল ও পাশের যানবাহন কে সরতে বলে তাতে পিছনের সকল বাইকার অতি সহজে চলাচল করতে পারে।
আর একটা কথা না বল্লেই নয় সেটা হলো পাহাড়ি রাস্তায় সে যে ভাবে সিগনাল দেয় সেটা আসলে লিখে বুঝাতে পারাটা কঠিন, সে পুরা হাত ডানে বামে উঁচু নিচু করে দেখায় এতে পিছনের বাইকগুলো যে কি উপকৃত হয় সেটা আসলে তারাই ভালো বর্ণনা করতে পারবে।
পরিশেষে বলতে চাই নিন্দুকেরা যে যাই বলুক না কেন আমি পরিবার নিয়েই ট্যুর করতে পছন্দ করি। পরিবার নিয়ে ট্যুর করার কি যে মজা সেটা যে পরিবার নিয়ে ট্যুর করে সেই একমাত্র বলতে পারবে।
আমার সাথে ট্যুরে আমার মেয়েও থাকে সবসময় আমার মেয়ের বয়স ৪ বছর ৬ মাস ইতিমধ্যে ওর ৫৮ টা জেলা ঘুরা শেষ। আমি আমার মেয়েকে নিয়ে অনেক গর্ববোধ করি সে যে ভাবে সাপোর্ট দেয় একটা বড়ো মানুষের পক্ষে ও সেটা সম্ভব না।
সবার কাছে একটাই অনুরোধ সবাই হেলমেট ব্যাবহার করবেন, আর রাস্তার যে যায়গায় আপনি অন্ধ সেই যাইগায় কখনো ওভারটেক করবেন না।
সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন আমরা যেন দেশের বাইরে পরিবার নিয়ে বাইকে ট্যুর দিতে পারি। বাংলাদেশ আমাদের ইতিমধ্যে ঘুরা শেষ।
সবার জন্য শুভকামনা ও ভালোবাসা রইলো।